BRTA ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান? Driving Licence A to Z Q&A

0
293
BRTA ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান-01
BRTA ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে চান-01
বর্তমানে ড্রাইভিং লাইসেন্স সবারই অনেক দরকারী একটা বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। আপনারা কিভাবে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাবেন। এ নিয়ে সবারই অনেক প্রশ্ন থাকে আজকের এই আমরা সমস্ত প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করব। পোস্ট টি সম্পূর্ণ   পড়েন তাহলে আপনার প্রশ্ন টা এখান থেকে পেয়ে যেতে পারেন।
বাংলাদেশের লাইসেন্স টা কি আপনি বাইরের দেশে ব্যবহার করতে পারবেন, এটার প্রশ্নের উত্তর পেয়ে যাবেন এরকম আরও অনেক প্রশ্নের উত্তর আজকের আমরা আপনাদের সহজভাবে দিয়ে থাকবো আশা করি আপনাদের অনেক হেল্প হবে।
প্রথমে আপনাদের যে প্রশ্নটি কনফিউজ থাকে সেটা হচ্ছে লার্নার এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স এর মধ্যে পার্থক্যটা কি? একটা ড্রাইভিং লাইসেন্স হচ্ছে সরকার প্রদত্ত একটি লাইসেন্স যার মাধ্যমে আপনি যে গাড়ি চালাতে পারেন বা গাড়ি চালাতে আপনার দক্ষতা আছে, এক কথায় বললে তারই একটা লাইসেন্স। এবার আসি লার্নার কি? আমার এটাকে আপনি প্রবেশপত্র ধরে নিতে পারেন একচুয়ালি আপনি যখন আবেদন  করবেন অর্থাৎ আপনি ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করবেন তখন আপনাকে এই লার্নার এট  দেওয়া হবে লার্নার এর  মাধ্যমে আপনি নিজেদের শিখেছেন ড্রাইভিং লাইসেন্স এর আওতাধীন আছেন এটা অনেকটাই প্রমাণ করে।
একটা প্রশ্ন করি অনেকেই 18 বছর হয়নি এই অবস্থায় ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করে আর তার আবেদন রেজেক্ট হয়ে যায়। এর প্রধান কারণ হলো আপনাকে অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্স পেতে হলে 18 বছর হতে হবে এর নিচে আসলে ড্রাইভিং লাইসেন্স বাংলাদেশ দেওয়া হয় না। অর্থাৎ অনুমতি দেওয়া হয় না।
অনেকেই আমাদের মধ্যে কিন্তু বিভিন্ন দেশে যাওয়ার প,, যেমন কাতার-সৌদি এরকম বিভিন্ন দেশে  কাজ করার সময় তারা ওই দেশের ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়ে থাকে। এখন প্রশ্ন হলো এই লাইসেন্স দিয়ে অর্থাৎ বিদেশি লাইসেন্স টা দিয়ে আসলে বাংলাদেশ আপনি গাড়ি চালাতে পারবেন কিন ।অথবা লাইসেন্স থাকি আপনার বাংলাদেশের লাইসেন্স এর ক্ষেত্রে কোন অবদান রাখবে কিনা। এক কথায় উত্তর হচ্ছে সে ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই বাংলাদেশের নিয়ম অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হবে এবং সমস্ত প্রক্রিয়া শেষে আপনি লাইসেন্স পেয়ে যাবেন। অর্থাৎ বিদেশি লাইসেন্স বাংলাদেশ কোন কাজে আসবে না জাস্ট এটা আপনি দেখাতে পারেন যে আপনি বাইরের কান্ট্রিতে ড্রাইভিং শিখেছেন। like, and , but,  so, and, because
এই প্রশ্ন যদি আপনি বাংলাদেশ থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স নেন এবং সেই লাইসেন্স দিয়ে বাহিরের কোন কান্ট্রিতে ইস্যু করলে আপনার কোন কাজে আসবে না।  এক কথায় বলতে গেলে আপনি যে দেশে থাকবেন ওই দেশের গভমেন্টের নিয়ম অনুসারে ওই দেশের ড্রাইভিং লাইসেন্স অবশ্যই আপনাকে নিতে হব।।like, and , but,  so, and, because
আরেকটা আমাদের কমন প্রশ্ন হচ্ছে অনেকে বলে থাকেন অষ্টম শ্রেণীর নিচে যদি শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকে তাহলে কি আপনার লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে পারবেন? এক কথায় বলতে গেলে বাংলাদেশের রুলস অনুসারে আপনি আবেদন করতে পারবেন না।  অর্থাৎ আপনাকে অবশ্যই অষ্টম শ্রেণী পাস হতে হবে অর্থাৎ অষ্টম শ্রেণী পাশের সার্টিফিকেট লাগবে মিনিমাম।like, and , but,  so, and, because
ড্রাইভিং লাইসেন্স করবেন কিন্তু মোটরসাইকেলের ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য কত টাকা লাগে অথবা গাড়ির জন্য চারচাকা গাড়ির জন্য ড্রাইভিং লাইসেন্স করতে কত টাকা লাগে।অথবা আপনি দুটি একসাথে করতে আপনার কত টাকা লাগবে। এজন্য আপনাকে দু ভাবে ফি দিতে হবে। লার্নার এর  জন্য আপনাকে দিতে হবে এবং ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য আরেকটি দিতে হবে।like, and , but,  so, and, because
নির্ধারিত ফি পেশাদার এর জন্য ১৬৭৯ টাকা এবং অপেশাদারী জন্য ২৫৪২ টাকা। নতুন আইন অনুযায়ী ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য টেস্ট বা চোখের ভিজুয়ালে টেস্ট করাতে হয় ডক্টরস ক্লিনিক এর উপর নির্ভর করে কেউ ১৫০০ টাকায় কেউ ২০০০ টাকা নেয়। আরে চোখের টেস্ট করাতে 200 টাকা লাগে।
একটা প্রশ্ন থাকে সেটা হচ্ছে অনেকে বলে ব্যাংকে আমরা টাকা জমা দিয়েছি বাট এখন কি অনলাইনে এপ্লাই করতে পারব কিনা? সে ক্ষেত্রে আসলে পসিবল না আপনি যদি ব্যাংকে টাকা জমা দিয়ে থাকেন তাহলে সেটা ম্যানুয়ালি আপনাকে করতে হব।। অফিসে যে আপনাকে কাজগুলো করতে হবে আর যদি আপনি অনলাইনে টাকা জমা দেন সেক্ষেত্রে আপনি অনলাইনে এপ্লাই করতে পারবে। like, and , but,  so, and, because
আরেকটি কমন পড়ছে হচ্ছে অনেকেই বলে থাকেন যে লার্নার পাওয়ার পর আমরা হাইওয়েতে বা বিভিন্ন জায়গায় মোটরসাইকেল চালাতে পারব কিন।। বা এক্ষেত্রে আমাদের কোনো আইনি প্রক্রিয়ার সম্মুখীন হতে হবে কিনা। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই আপনার জানা উচিত যে আপনি যখন লার্নর  পাবেন তার মানে আপনি শিখেছেন শিক্ষানবী।।
সে ক্ষেত্রে আপনি গাড়ি চালাতে পারবেন কিন্তু আপনার পেছনে অবশ্যই ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে এই ধরনের একজনকে থাকতে হবে অর্থাৎ সে আপনাকে শিখাচ্ছে আপনি গাড়ি চালানো শিখছেন। এরকম পজিশন থাকলে প্রবলেম হবেনা। কিন্তু সে ক্ষেত্রে আপনাকে এলাকায় চালাতে হবে হাইওয়ে থেকে দূরে থাকতে হবে এটাই মানাটাই আপনার জন্য ভালো হবে। আর আপনি যদি হাইওয়েতে চালান সে ক্ষেত্রে যদি মবিল কোট এর আওতায় পড়েন সে ক্ষেত্রে আপনার নামে পুলিশ মামলা করতে পারে ব্যাপারটা অবশ্যই আপনার মাথায় রাখতে হবে।
এখন একটা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন হচ্ছে অনেকে বলেন যে আমার লার্নার এর মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে সে ক্ষেত্রে আমি কি করতে পারি? অথবা আমি লার্নার এর মেয়াদ কিভাবে বাড়াবো? এটা কি অনলাইনে সম্ভব কিনা? এর উত্তর হচ্ছে লার্নার এর মেয়াদ অনলাইনে    বাড়ানো পসিবল না। আপনাকে অবশ্যই বিআরটি এ অফিসে যেতে হবে সেখানে একটি নির্দিষ্ট ফি জমা দিয়ে পুরাতন লার্নার দিয়ে আপনাকে আরেকটি নতুন ডেট নিতে হবে। পরীক্ষার দিন অর্থাৎ আপনি যদি পরীক্ষা দিতে কোন সমস্যা হয় বা পরীক্ষা না দিতে পারেন সে ক্ষেত্রে আপনার লারনারের নতুন পরীক্ষার তারিখ বসিয়ে নিয়ে আসতে পারে।। সেটা ছয় মাস হতে পারে এক বছর হতে পারে।like, and , but,  so, and, because
আরেকটি প্রশ্ন অনেকেই থাকে সেটা হচ্ছে অনেকে বলে আমি তিনমাস হলো তার  ফিঙ্গার দিয়েছি এখন আমি লাইসেন্স পাচ্ছিনা। কিভাবে পেতে পারি? আসলে এর অ্যানসার সঠিকভাবে দেওয়া পসিবল না কারণ লাইসেন্সটা যে বিআরটিসি আন্ডারে অর্থাৎ যে অফিসের আন্ডারে আপনে লাইসেন্সটি করেছেন, এটা অনেকটাই তাদের উপর নির্ভর করে তারা কবে দিবে বা কবে দিতে পারবেন।
এটা তারাই একমাত্র বলতে পারবে এটা নির্দিষ্ট করে কোন তারিখ বলা পসিবল না। আপনাকে জন্য বসে ওয়েট করতে হবে এবং তাদের সাথে মাঝে মাঝে যোগাযোগ করতে হবে অর্থাৎ অফিসে যোগাযোগ করতে হবে। তাহলে আপনি নির্দিষ্ট একটা তারিখ তারা দিবে একটা হয়তোবা এক দুবার চেঞ্জ হয়। আমি নিজে যখন ড্রাইভিং লাইসেন্স করেছি আমাকে একবার ডেট পেতে হয়েছে। এটা বিভিন্ন সমস্যার কারণে হয়ে থাকে তবে আপনি ফিঙ্গারপ্রিন্ট দিলে অবশ্যই লাইসেন্স পাবেন। সেটা দু মাস 6 মাস পর হলো পাবে। । বিভিন্ন কারণে একটু লেট হতে পারে আবার কখনও কখনও দেখা যায় ফিঙ্গারপ্রিন্ট দেওয়ার এক মাসের মধ্যেই লাইসেন্স চলে আসে।like, and , but,  so, and, because
আরেকটা প্রশ্ন হল অনেকেই মানে এই ফুল প্রচেষ্টা অনলাইনে করা পসিবল কিনা? এটা বলে প্রশ্ন করে থাকে এর একটাই উত্তর এটা কখনোই সম্ভব নয় অনলাইনে। কারণ ড্রাইভিং লাইসেন্স এই বিষয়টাই হচ্ছে আপনাকে সরাসরি সসরিলে এটা আপনাকে এক্সাম দিতে হবে। এক্সাম এ পাশ করার পরে আপনি লাইসেন্সটা পাবে।। তার মানে আপনাকে সশরীরে সেখানে যেতেই হবে পুরো প্রচেষ্টা অবশ্যই অনলাইনে পসিবল না।
যদি আপনার আরও কোনো প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে আপনার কমেন্টের মাধ্যমে আমাদের জানাতে পারেন। আমরা শত চেষ্টা করব আপনাকে হেল্প করার জন্য। আশাকরি ড্রাইভিং লাইসেন্স সম্পর্কে অনেকগুলো তথ্য আপনি পেয়ে গেলেন, অবশ্যই আপনি কিছুটা উপকৃত হয়েছেন।like, and , but,  so, and, because
আমরা প্রতিনিয়ত এ ধরনের আপডেট পোস্টগুলো করে থাক। । সেজন্য অবশ্যই আমাদের সাথেই থাকবেন তাহলে এই ধরনের যাবতীয় প্রশ্নের উত্তর আপনারা খুবই সহজে পেয়ে যাবেন ধন্যবাদ সবাইকে আমাদের সাথে থাকার জন্য।like, and , but,  so, and, because

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here