ফ্রান্স দেশ – সম্পর্কে অ-দ্ভুত ও অ-বাক করা কিছু তথ্য

0
80
ফ্রান্স দেশ সম্পর্কে অ'দ্ভুত ও অ'বাক করা কিছু তথ্য
ফ্রান্স দেশ সম্পর্কে অ'দ্ভুত ও অ'বাক করা কিছু তথ্য

‘হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই আজকে আপনাদের নিয়ে যাব ফ্রান্সে। যে দেশটি সম্পর্কে আমাদের সবারই কমবেশি ‘জানার ইচ্ছা জাগে। তো চলেন সৌন্দর্য পারফিউমের দেশ ফ্রান্স থেকে ঘুরে আসি । ফ্রান্স দেশ

আমরা সবাই কমবেশি জানি ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস। প্যারিসকে বলা হয় সুন্দর প্রেমের নগরী। সারাদেশের প্রেমিকযুগল টা এই শহরে আসে,’ প্রেমের জন্য এই দেশটিতে রয়েছে পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় সব ব্যবস্থা। সবুজ উপত্যকা আর সুউচ্চ বরফাবৃত পর্বতমালা পৃথিবীর কোন রাষ্ট্রের মধ্যে একটি হল ফ্রান্স।
ব্রিটিশদের পর সবচেয়ে বেশি দেশ শাসন করেছে। এই দৃ’ষ্টি বলা হয়ে থাকে এক সময় পৃথিবীর 8% ফ্রান্সের মালিকানাধীন ছিল। বরং এ দেশের তরুণদের মধ্যে বিয়ে করার হার খুবই কম। লিভ টুগেদার করে থাকতেই পছন্দ করে ফ্রান্সের মানুষগুলো। অনেক আনন্দ পেয়ে থাকে এরা সবস’ময় সাজানো-গোছানো। প্রাধান্য দিয়ে ‘থাকে তারা সবসময় নিজেদের সৌন্দর্য কে।
প্রাধান্য দিয়ে ‘থাকি এরা হোটেল রেস্তোরায় খেতে। বেশি পছন্দ করে, মন চাইলেই বাইরে বিভিন্ন হোটেল-রেস্তোরাঁয় সময় কাটিয়ে থাকে। আর এরা অনেক বেশি মজা করে থাকে। শনিবার ও রবিবার ছুটির দিন বলে এরা বাসায় দুমদাম পার্টির আয়োজন’করে থাকে। সেখানে সবাই মিলে অনেক ম’জা করতে আর আনন্দ করে থাকে। ফরাসিরা জাতি হিসেবে খুবই ভদ্র।’ ফ্রান্স দেশ
পুলিশগুলো ‘অসম্ভব ভদ্র তার আচরণ করে আর এটি সারাবিশ্বেই সমালোচিত, এখানকার পুলিশরা যেকোনো বিষয়ে হেল্প করে থাকে, and’জনসাধারণকে যারা রাস্তায় চলাফেরা করে, কোন সাধারণ বিপদাপদে তাদেরকে রক্ষা করে থাকে বিভিন্নভাবে সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে থাকে’, তাই বলা হয়ে থাকে প্যারিসের পুলিশগুলো বিশ্বের মধ্যে নম্র-ভদ্র তালিকার মধ্যে অন্যত।।
সবচেয়ে বেশি ‘পছন্দ করে ফুলকে ফুলকে। বেশি ভালবাসে বলেই তারা জন্মদিন মৃত্যুদিন এবং বিভিন্ন উৎসবে ফুল উপহার দিয়ে থাকে।and এই দে’শে প্রচুর পরিমাণে ফুলের চাষ হয়ে থাকে। প্যারিসের মানুষ অনেক সম্মান করে থাকে আর এজন্যই এ দেশটিতে প্রচুর পরিমানের ফুল কেনাবেচা হয়।
প্রতিদিন আর ফুল কেনা বেচার জন্য রয়েছে হাজার হাজার ফুলের মার্কেট। সাধারণ লোকেরা সে মার্কে’ট থেকে ফুল সংগ্রহ করে। ‘প্রেমিক-প্রেমিকাকে এবং বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠানে আদান প্রদান করা হয়ে থাকে।
বাংলাদেশের ‘একটা বিরাট অংশ বসবাস করে। বাংলাদেশের রয়েছে প্রচুর পরিমাণ হোটেল রেস্টুরেন্ট সেগুলো বাংলাদেশের জন্য খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা,and কি আর এজন্যই এখানে প্রতিদিন জমে ওঠে বাংলাদেশের মানুষের মিলনমেলা। অনেক বা’ঙালি মেয়েদের বিয়ে’ করে সংসার করতেও দেখা যায়। বন্ধুরা পৃথিবীর প্রথম দেশ যেখানে আইন করে নিষিদ্ধ করা হয় এখানে বোরকা। ফ্রান্স দেশ
এবং হিজাবের মুখটাকে কে আইন করে নিষিদ্ধ করা হয় এই আইনটি পর্যটকদের জন্য প্রযোজ্য। এই আইনটি য’দি আপনি না মানেন তাহলে অবশ্যই 150 ইউরো জরিমানা দিতে হবে। আর যেসব পুরুষ স্ত্রীকে বোরকা পরতে বাধ্য করেন তাদের সাজা এক’ বছরের জেল ও 30 হাজার ইউরো জরিমান।।
ভালোবাসা দিবস ‘হিসেবে এই দেশে ভালোবাসা দিবস হিসেবে এই দেশে, প্রেমিক-প্রেমিকা, স্বামী স্ত্রী, সবাই তাদের ভালোবাসা প্রদর্শন করতে পারবে। সুন্দরভাবে কারো কারো মতে ভালোবাসা দিবসের সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান উদযাপিত হয়। andএ’ই প্যারিসে ভালোবাসা দিবসে প্রেমিক প্রেমিকা তাদের ভালোবাসা নিবেদন করে থাকে। ফ্রান্সের মানুষ নিজেদের ভালোবাসার’Amazing Facts About France
জন্য সবকিছুই করতে পারে। ফ্রান্সের মানুষ সাধারণত ভালোবাসা প্রবন হয়ে থাকে, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের ভালোবাসা সেটা যেকোন প্রেমকাহিনী কেউ হার মানাবে। কারণ প্রেসিডেন্ট স্কুলের শিক্ষিকা ছিলেন তার প্রেমিক তাকে পাওয়ার’ জন্য সব সময় সে উতলা ছিল। andপ্রথম অবস্থায় মেয়েটি তার ভালোবাসা প্রত্যাখ্যান করেছিল, কিন্তু আস্তে আস্তে তারা ভালবাসতে শুরু’ করে এবং 25 বছর বয়সের ব্যবধানে একসময় তারা বিয়ে করে ঘর সংসার শুরু করে।
ফ্রান্সের বৃদ্ধ মানু’ষের কাছে ছেলে সন্তান না থাকায় তাদের শেষ জীবনটা খুবই কষ্টে কাটে। তারা একা একাই শেষ জীবনটা পার করতে হয।। সময় কাটানোর জন্য তাদের কাছে থাকে পোষা কুকুর বিড়াল। তারাই তাদের সাথে খেলা করে সময় কাটায়। ‘এই ব্যাপারটা আমার কাছে খুবই খারাপ লেগেছে। খুবই কষ্ট দিয়েছে,
পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে স্বর্ণের হিসাব করলে 4 নম্বরে রয়ে’ছে ফ্রান্স।
কারণ ফ্রান্সের কা’ছে প্রচুর পরিমাণ স্বর্ণ মজুদ রয়েছে বর্তমানে। দেশটির সেন্ট্রাল ব্যাংকের 2470 মজুত রয়েছে।
পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই সুপার মার্কেটের খাবার গুলো নষ্ট হলে সেগুলো ফেলে দেওয়া হয়। কিন্তু এক্ষেত্রে ব্যতিক্রম পৃথিবীর সর্বপ্র’থম দেশ যেখানে বিক্রি না হওয়া খাবারগুলো নষ্ট করা নিষিদ্ধ করা হয়।
খাবারগুলো নষ্ট হওয়ার আগেই যাদের প্রয়োজন তাদের কাছে বিলিয়ে দিয়ে থাকে’
অর্থাৎ গরিব মানুষদের দিয়ে থা’কেন। মোটকথা হলো খাবার অপচয় করা বা নষ্ট করা যাবেন।।
পৃথিবীর সব দেশেই উৎসবে শ্যাম্পেন ব্যবহার করা হয়।and আর এই চ্যাম্পিয়ান গুলো তৈরি হয় ফ্রান্সের চ্যাম্পিয়ান নামক একটি জায়গায়।
সামরিক শক্তি’র হিসাবে বিশ্বের মধ্যে 6 নম্বরে আছেন ফ্রান্স। 300 পরমাণবিক অস্ত্র পদাতিক সৈন্য রয়েছে সেনাবাহিনীর হাত।। এছাড়াও ফ্রান্সের বিমানবাহি’নীতে রয়েছে এক হাজারেরও বেশি যু’দ্ধবিমান।
মধ্যযুগের সপ্তম আশ্চর্যের মধ্যে একটি ছিল আরএফএল টাওয়ার। দূর থেকে আর এফ এল টাওয়ার দেখতে খুব সরু ‘মনে হলেও আসলে ওটা অনেক অসুস্থ ও বিশাল। আরিফের টাওয়ারটি চারটি বিষয়ের উপর দাঁড়ানো 8038 দিয়ে তৈরি বিভিন্ন আকৃতি। and তৈ’রি করা হয়েছিল টাওয়ারটির মাঝে রয়েছে একটি লিফট, দিয়ে একদম উপর পর্যন্ত উঠা যায়। শহরের প্রায় 75 কিলোমিটার দূর থেকেও দেখা’ যায় সেখান থেকেও পেরেছেন।
এই সৌন্দর্য সুন্দর ভাবে উপভোগ করা যায় দিনের থেকে তাতে আরও বেশি সুন্দর হয়ে থাকে। কারণটা ওয়ার্ডের মধ্যে রয়েছে অনেক রং বেরঙের আলোর ব্যবস্থা। আর যেগুলো অনেক দূর থেকে খুবই সুন্দর’ দেখা যায় আরএফএল টাওয়ারের মধ্যে’ রয়েছে অনেক বিভিন্ন ধরনের সুইমিং বাতি। যেগুলো মুহূর্তে তাদের রং বদলাতে পারে। আর যেগুলো দূর থেকে যেকোনো মানুষের মনকে আক’র্ষিত কর।।
টেন লা’ইনের জন্য রয়েছে এখানে সবচেয়ে বড় একটি সুরঙ্গ, চ্যানেলের মাধ্যমে ট্রেন চলাচল করতে পারে। ফ্রান্স এবং ইংল্যান্ডের সাথে যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়ে যাওয়ার কারণে বাইরে থেকে খুব একটা বোঝা যায় ন।। চলে গেছে বিশ্বের সবচেয়ে ব’ড় মিউজিয়াম সম্রাট প্রথম নেপোলিয়নের শাসনামলে তিনি বিভিন্ন’ দৃশ্যের থেকে মহামূল্যবান যেসব জিনিস পেয়েছেন সেগুলো এই মিউজিয়ামে ‘রেখে দিয়েছেন। কিন্তু নেপোলিয়নের মৃত্যুর পর অনেক মূল্যবান জিনিস বিভিন্ন দেশ থেকে আনা সে’গুলো ফেলে দেওয়া হয়।
বন্ধুরা ফ্রান্স সম্প’র্কে অনেক কিছুই আপনাদের বলার চেষ্টা করেছে কেমন লেগেছে সেটা অবশ্যই আমাদের জানাবেন। ফ্রান্স দেশটি সত্যিই অসাধারণ এ’দেশের মানুষগুলো অনেক ভদ্র। আপনার কেমন লেগেছে অবশ্যই কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানাবেন আমাদের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অনে’ক ধন্যবা’দ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here