বাইক চালানো কনের প্রশ্ন- আমি কি বলেছি আমাকে ভাইরাল করো, ছবি দেখে খারা’প বলবেন না

0
507
বাইক চালানো কনের প্রশ্ন- আমি কি বলেছি আমাকে ভাইরাল করো, ছবি দেখে খারা'প বলবেন না
বাইক চালানো কনের প্রশ্ন- আমি কি বলেছি আমাকে ভাইরাল করো, ছবি দেখে খারা'প বলবেন না
বাইক চালানো কনের প্রশ্ন- আমি কি বলেছি আমাকে ভাইরাল করো, ছবি দেখে খারা’প বলবেন না
নাম ফারহানা আফরোজ, বাড়ি যশোর শহরে। গত ১৩ আগস্ট নিজের গায়ে হলুদ অনুষ্ঠানে বাইক চেপে ব্যতিক্রমী গায়ে হলুদের আয়োজন করেন তিনি।
যেখানে দেখা যায়, গায়ে হলুদের সাজে মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন তিনি। তার পেছনে একদল যুবক, মোটরসাইকেলে করে শোভাযাত্রা করা তাদের গায়েও একই রঙের পাঞ্জাবি। এমন ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাই’রাল হয়েছে।
মূলত সে বিষয়টি নিয়েই সামাজিক যোগাযোগামধ্যমে ইতিবাচক-নেতিবাচক নানা মন্তব্য এসেছে। বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন সেই ছা’ত্রী।
‘নতুন কিছু দেখলে সবাই হু’মড়ে পড়বে। ভাল খা’রাপ সবই বলবে’ শিরোনামে ফেসবুকে তিনি লিখেছেন, আমি ফারহানা আফরোজ; বর্তমান ফেসবুকে খুব ভাই’রাল হচ্ছে আমাকে নিয়ে। কিন্তু আমি কি বলেছি আমাকে ভাই’রাল করো। আমি নিজে বাইক চালাই। ঢাকাতে থাকি, অহ রহ ছে’লেরা হলুদে বাইক নিয়ে এন্ট্রি দিচ্ছে। আমি মে’য়ে হয়ে বাইক চালাতে পারি। তাই ভাবলাম বাইক চালিয়েই এন্ট্রি দেই।
এখন করো’নাকালীন সময়ে বিয়ের প্রোগ্রাম করতে থা’না থেকে অনুমতি প্রয়োজন হয়। আমা’র ক্ষেত্রেও তার ভিন্ন ছিল না। সকল অনুমতি নিয়েই আমা’র হলুদ ও বিয়ের প্রগাম। সবই ঠিক থাকত। মেকাপ, ড্রেস, সাজ। এত কথাও হত না, যদি বাইক নিয়ে পার্লার থেকে প্রোগ্রামে না যেতাম।
সেই কনের প্রশ্ন - শুধু বাইক চালানো ছবি দেখে আমা'র চরিত্রের সনদ দিয়ে দিলেন?
সেই কনের প্রশ্ন – শুধু বাইক চালানো ছবি দেখে আমা’র চরিত্রের সনদ দিয়ে দিলেন?
কথা হলো। ভাল খা’রাপ সব হলো। আমা’র ছবি আমা’র থেকে অনুমতি না নিয়ে গ্রুপে পেজে বাজে পোস্ট। একজন বিশিষ্ট ব্যক্তি টিপু ভাই sk media নিউজ করল কেন? আজ মে’য়ে হয়ে বাইক চালিয়ে এন্ট্রি তাই? কত মে’য়ে বাইকার আজ বাংলাদেশ। তাহলে আমি যদি হলুদে-তে বাইক চালিয়ে ঢুকি, কিছু মানুষের এত সমস্যা যে গ্রুপে বাজে পোস্ট তো বটেই। কিন্তু ইউটিউবে ট্রোল। এগুলো কি মেনে নেওয়া যায়? উনি খুব বড় ইউটিউবার। তার থেকে অন্তত এটা আশা রাখি না।
আমা’র সাথে এটা হয়েছে; আমি চাই না এমন হ্যারাজমেন্ট আর কোন মে’য়ে বা লেডি বাইকারের সাথে হোক। এমনিতেই সমাজে আমা’রা যারা বাইক চালাই. তাদের অনেকের কথার সাথে ল’ড়াই করতে হয়। ধীরে ধীরে এগুলো কমবে তা না; বেড়েই চলেছে। আর কতদিন দেখব আমাদের সাথে এই অ’ত্যাচার জানি না।
যেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী মে’য়ে, স্পিকার মে’য়ে, দেশ মে’য়েরা চালাই; সেখানে একটা মে’য়ে যে বাইক জানে তার বাইক চালনো কেন সমাজ ভালো’ভাবে নিচ্ছে না? নিচ্ছে না মানলাম কিন্তু তার চরিত্র নিয়ে কথা আজে-বাজে। এগুলো কিভাবে সহ্য হয়? আমা’রও পরিবার আছে। বর আছে শশুরবাড়ি আছে। আমা’র বর শশুরবাড়ি না হয় আমা’র পক্ষে আছে। আমা’র কোন সমস্যা নাই। কিন্তু সমস্যা না থাকলেই কি এভাবে একটা মে’য়ের চরিত্র নিয়ে কথা বলতে হবে? শুধু বাইক চালানো ছবি দেখে সবাই আমা’র চরিত্র সনদ দিয়ে দিল? এগুলোর বিচার কি হবে?
ফারহানার বাড়ি যশোর শহরের সার্কিট হাউসের সামনে। ২০১১ সালে যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। পরে ২০১৩ সালে আব্দুর রাজ্জাক কলেজ থেকে পাস করেন এইচএসসি। এখন ড্যাফোডিল ইউনিভা’র্সিটি থেকে এইচআর-এ এমবিএ পড়াশোনা করছেন।
ফারহানা জানান, ২০০৭ সাল থেকে বাইক চালান তিনি। বিয়ের অনুষ্ঠানকে ব্যতিক্রমী করার ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন করেছেন।

 

বাইকার ফারহানা ‘নববধূ’ নয়, বিয়ে তিন বছর আগে, রয়েছে সন্তানও

 

আমাদের প্রচারিত সকল নিউজ গুলো দেশের বিভিন্ন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও অন্যান্য অনলাইন সোর্স থেকে সংগ্রহ করে থাকি। তাই এসব নিউজের সাথে সরাসরি আমাদের  কোন সংশ্লিষটতা নেই। কোন সংবাদের সত্যতা নিয়ে আপনাদের কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট সেকশনে জানাবেন। আমরা সেই সংবাদের অরিজিনাল সোর্সটি সাথে সাথে আপনাদের জানিয়ে দিব। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here